আশুলিয়ায় বন্ধ কারখানা খুলে দেওয়ার দাবীতে শ্রমিকদের বিক্ষোভ

প্রকাশিত: 6:45 PM, October 14, 2020

নিজস্ব প্রতিবদেক: সাভারের আশুলিয়ায় বন্ধ কারখনা খুলে দেওয়ার দাবিতে কারখানার সামনে বিক্ষোভ করেছেন শ্রমিকরা।

বুধবার (১৪ অক্টোবর) সকালে আশুলিয়ার জামগড়া এলাকায় সিডকো গ্রুপ নামের কারখানার সামনে এ বিক্ষোভ কর্মসূচি পালন করেন প্রায় ৬ শত শ্রমিক।

শ্রমিকরা জানায়, বিগত কয়েক মাস থেকে করখানা কতৃপক্ষ নির্দিষ্ট সময় বেতন দিতে পারেনি। গত মাসের ২০ সেপ্টম্বরে কারখানা কতৃপক্ষ, বিজিএমইএ ও শিল্প পুলিশের উপস্থিতে অক্টোবর মাসের ১১ তারিখে বেতন দেওয়ার একটি চুক্তি হয়। পরে কারখনা কতৃপক্ষ নির্দিষ্ট তারিখে বেতন দিতে অপারগতা প্রকাশ করলে শ্রমিকরা কারখানার ভেতরে কর্মবিরতি পালন করে অবস্থান করে। পরে রাত ৮ টার দিকে শিল্প পুলিশের এক কর্মকর্তা কারখানায় গিয়ে কর্তৃপক্ষের সাথে আলাপ করে আগামী ১৫ অক্টোবর বেতন দেওয়া আশ্বাস দিলে শ্রমিকরা শান্ত হয়ে বাড়ি চলে যায়। পর দিন ১৩ অক্টোবর শ্রমিকরা কারখানায় যোগদান করতে গেলে কারখানা বন্ধের নোটিশ দেখতে পায়। নোটিশে ১৩/১ ধারায় কারখানা অনির্দিষ্ট কালের জন্য বন্ধ ঘোষণা করা হয়। গতকাল রাতে কারখানার শ্রমিকদের মোবাইল একাউন্টে বেতনের টাকা গেলেও কারখানা না খুলায় আজ এই বিক্ষোভ করেছে তারা। এবং বিক্ষোভ থেকে আগামী ১৭ অক্টোবর মালিকের বাড়ি ঘেড়াও করার ঘোষণা দেয় শ্রমিকরা।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক শ্রমিক বলেন, আমাদের কারখানা প্রতি মাসে বেতন দিতে ঝামেলা করে। তবে বেতন এক সময় না এক সময় পেয়ে যাই। কিন্তু এবার বেতন আসার পর কারখানায় বন্ধের নোটিশ। আমারা তো চাকরি হারালে সবাই দিশহারা হয়ে যাবো। এতো শ্রমিক কি করবো কোথায় যাবো। নতুন করে কেনো কারখানায় চাকরিও নিতে পারবো না।

এ ব্যাপারে বিজিএমইএর সাভার ও আশুলিয়া অঞ্চলের ক্রাইসিস কমিটির পরিদর্শক সিদ্দিকুর রহমান বলেন, আসলে কারখানায় কোনো অষন্তোষের সৃষ্টি হলে কর্তৃৃপক্ষ কারখানা বন্ধ করে দিতে পারে। আমরা কারখানার মালিকের সাথে কথা বলছি বিষটি সমাধান করার জন্য।

এ বিষয়ে কারখানাটির সহকারী ব্যবস্থাপনা পরিচালক নজরুল ইসলামের সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি কথা বলতে রাজি হননি।

বাংলাদেশ বস্ত্র ও পোশাক শিল্প শ্রমিক লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক শ্রমিক নেতা সারোয়ার হোসেন বলেন, কারখানা কতৃপক্ষের বেইনি ও অন্যায় সিদ্ধান্তের প্রতিবাদ জানাই। অতি বিলম্বে কারখানা খুলে দিয়ে শ্রমিকদেরকে সুষ্ঠ ভাবে কাজে যোগদানের নিশ্চিত করার জন্য জোর দাবি জানাচ্ছি।