শাহ আবদুল করিমের ১২তম প্রয়াণ দিবসে শ্রমিক দর্পণের শ্রদ্ধা

প্রকাশিত: 2:25 AM, September 12, 2020

নিজস্ব প্রতিবেদক

আজকের এই দিনে ভাটির পুরুষ’ খ্যাত কিংবদন্তী সঙ্গীত সাধক শাহ আবদুল করিমের ১২তম প্রয়াণ দিবস। বাউল সঙ্গীতকে তিনি এক অনন্য উচ্চতায় নিয়ে গেছেন।

সিলেটের সুনামগঞ্জ জেলার দিরাই উপজেলায় ১৯১৬ সালের ১৫ ফেব্রুয়ারি জন্ম গ্রহণ করেন শাহ আবদুল করিম। তাঁর পিতার নাম ইব্রাহিম আলী ও মাতার নাম নাইওরজান।

বাউল শাহ আবদুল করিম কঠোর জীবন সংগ্রামের মাঝে বড় হয়েছেন। আর সঙ্গীত সাধনার শুরু তার ছেলেবেলা থেকেই। খুব ছোটবেলা থেকেই তিনি গুরু বাউল শাহ ইব্রাহিম মাস্তান বকশ’র কাছ থেকে সঙ্গীতের প্রাথমিক শিক্ষা নেন।

স্ত্রী আফতাবুন্নেসার প্রেরণায় তিনি বাউল সম্রাট। তাকে আদর করর ডাকতেন ‘সরলা’। তাকে নিয়ে কালজয়ী গানও বেঁধেছেন তিনি।

ভাটি অঞ্চলের মানুষের জীবনের সংগ্রাম, সুখ-দুঃখ, প্রেম-ভালোবাসা, ন্যায়-অন্যায়, অবিচার, কুসংস্কার, অসাম্প্রদায়িক চেতনা, সৃষ্টিতত্ত্ব, নবীতত্ত্ব, রাধাকৃষ্ণতত্ত্ব, মুর্শিদি, মারফতি, ভক্তিগীতি, মনশিক্ষা, দেহতত্ত্ব, কারবালাতত্ত্ব, বিরহ, বিচ্ছেদ, দেশাত্মবোধক, সমাজ বিনির্মাণ প্রভৃতি বিষয় নিয়ে তিনি অমর গীতবাণী সৃজন করেছেন।

তাঁর রচিত এবং সুরারোপিত গানের সংখ্যা প্রায় পাঁচ শতাধিক। হাজার বছরের ঐতিহ্যবাহী বাংলা সঙ্গীতের যে নিজস্ব সম্পদ- লোকগীতি, বাউল গান, ভাটিয়ালি প্রভৃতি আঙ্গিককে আন্তর্জাতিক পরিমণ্ডলে প্রতিষ্ঠা করার ক্ষেত্রে তিনি বিশেষ অবদান রেখেছেন।

আজকের এই দিন ১২ সেপ্টেম্বর তাঁর ১২তম প্রয়াণ দিবসে শ্রমিক দর্পণের পক্ষ থেকে বিনম্র শ্রদ্ধা।