যথাযোগ্য মর্যাদায় সাভারে জাতীয় শোক দিবস পালন

প্রকাশিত: 9:12 PM, August 15, 2020

নিজস্ব প্রতিবেদক

স্বাধীনতার স্থপতি, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান এর ৪৫ তম শাহাদাত বার্ষিকী ও জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে আশুলিয়ার বিভিন্ন স্থানে দোয়া ও মিলাদ মাহফিলের আয়োজন করা হয়েছে।

শনিবার (১৫ আগস্ট) দুপুরে থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত বাংলাদেশ বস্ত্র ও পোশাক শিল্প শ্রমিক লীগ এবং শ্রমিক লীগের আশুলিয়া আঞ্চলিক কমিটির উদ্যোগে আশুলিয়ার বাইপাইল এলাকার করিম সুপার মার্কেট, আশুলিয়া স্বেচ্ছাসেবক লীগের উদ্যোগে ধলপুর, ছাত্রলীগের উদ্যোগে আশুলিয়ার বগাবাড়ি এলাকায় এই দোয়া ও মিলাদ মাহফিলের আয়োজন করা হয়।

বাংলাদেশ বস্ত্র ও পোশাক শিল্প শ্রমিক লীগের কেন্দ্রীয় কমিটির সাংগঠনিক সম্পাদক সারোয়ার হোসেন এবং শ্রমিক লীগের আশুলিয়া আঞ্চলিক কমিটির সাধারন সম্পাদক লায়ন মো: ইমামের আয়োজনে প্রায় সহস্রাধিক দুস্থ ও গরীব মানুষের মাঝে খাবার বিতরণ করা হয়।

এসময় শ্রমিক লীগের আশুলিয়া আঞ্চলিক কমিটির সাধারন সম্পাদক লায়ন মো: ইমাম বলেন, যে মানুষটির জন্ম না হলে পৃথিবীর মানচিত্রে বাংলাদেশের স্থান হতো না, যে মানুষটির জন্য আমরা স্বাধীন বাংলাদেশে মাথা উচু করে বেঁচে আছি, সেই মানুষটিসহ তার পুরো পরিবারকে হত্যা করেছে হায়েনারা। তারা ছোট মাসুম শিশুকে পর্যন্ত ছাড় দেয় নি। ১৫ আগস্ট বাংলাদেশের একটি কলঙ্কিত অধ্যায়। ইতিমধ্যে হত্যাকারীদের বিচার শুরু হয়েছে। হত্যাকারীদের কাউকে ছাড় দেওয়া হবে না।

বস্ত্র ও পোশাক শিল্প শ্রমিক লীগের কেন্দ্রীয় কমিটির সাংগঠনিক সম্পাদক সারোয়ার হোসেন বলেন, দেশের মানুষের আশা আকাঙ্ক্ষা ও বাঙালি জাতির অস্তিত্ব ধূলিসাৎ করে দিতেই ১৫ আগস্ট বঙ্গবন্ধুকে সপরিবারে হত্যা করেছে স্বাধীনতা বিরোধী কুচক্রী মহল।

বঙ্গবন্ধুর হত্যার সঙ্গে জড়িত ষড়যন্ত্রকারীরা এখনও ষড়যন্ত্রে লিপ্ত আছে। বাংলার মানুষ তাদের সকল অপকর্ম ও ষড়যন্ত্র সম্পর্কে যথেষ্ট সচেতন। তাই দেশের মাটিতে ষড়যন্ত্রকারীদের কোনো ঠাঁই হবে না। শেখ হাসিনার নেতৃত্বে তাদের অস্তিত্ব বিলীন করে দেওয়া হবে বলেও জানান তিনি।

অপর এক অনুষ্ঠানে আশুলিয়া থানা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সহ-সভাপতি মোঃ মনির হোসেন বলেন, বঙ্গবন্ধু, বাঙালি ও বাংলা অবিচ্ছেদ্য অংশ। বাংলার শোষিত, বঞ্চিত ও নিপীড়িত জনগোষ্ঠীর অধিকার আদায়ের জন্য তিনি সীমাহীন ত্যাগ-তিতিক্ষা, জেল-জুলুম ও নির্যাতনের শিকার হয়েছেন। তবুও দেশের মানুষকে মুক্ত করে দেশকে স্বাধীন করেছেন। এসময় প্রায় ৫ শতাধিক মানুষের মাঝে খাবার বিতরণ করা হয়।

এছাড়া আরেক আয়োজনে ছাত্র নেতা আরিফুল ইসলাম বলেন, জাতির পিতার দেখানো পথ ধরেই তার সুযোগ্য কন্যা, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বাংলাদেশ ক্ষুধা ও দারিদ্র্যমুক্ত, উন্নত সমৃদ্ধ স্বপ্নের সোনার বাংলায় পরিণত হবে। এসময় ছাত্র লীগ নেতা আরিফুল ইসলামের ব্যক্তিগত উদ্যোগে প্রায় সহস্রাধিক দুস্থ মানুষের মাঝে খাবার বিতরন করা হয়।

প্রত্যেকটি আয়োজনে পৃথকভাবে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ও তার পরিবারের শহিদদের মাগফেরাত কামনা করে দোয়া করা হয়।